ভ্লাদিমির পুতিন ২৪ বছর পর উত্তর কোরিয়ায় সফর করলেন।পিয়ংইয়ং বিমানবন্দরে গভীর রাতে নামে ভ্লাদিমির পুতিনের বিমান।কিম জং উন সে সময় বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।দুই রাষ্ট্রপ্রধান বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে রাশিয়ার দেওয়া উপহার লিমুজিনে করে শহরের দিকে রওনা হন। এর পর তাদের কর্মসূচি সম্পর্কে আর কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি।

কিমকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট গভির রাতে বিমানবন্দরে আসার জন্য । উত্তর কোরিয়ার সরকারি গণমাধ্যম জানিয়েছে,সাক্ষাতে যথেষ্ট আবেগঘন ছিলেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান।রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বিমানবন্দরে নামার পর কিম জং উন অভ্যর্থনা জানান।

উত্তর কোরিয়ার প্রশাসন জানিয়েছে, এই সফরে দুই পক্ষের আলোচনায় দুই দেশের সম্পর্ক আরো গভীর হবে।

উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, বিশ্বের রাজনীতির মেরুকরণে পুতিনের এই সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।মস্কো ছাড়ার আগে পুতিনও একটি ডিক্রি জারি করে এসেছেন। যাতে বলা হয়েছে, পিয়ংইয়ং-য়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করাই তার প্রধান এবং প্রথম লক্ষ্য।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে কৌশলগত চুক্তি হবে।

আমেরিকাসহ পশ্চিমা বিশ্ব একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি করে রেখেছে উত্তর কোরিয়ার উপর। এই পরিস্থিতিতে অক্সিজেন দিয়েছে দুই রাষ্ট্রপ্রধানের সাক্ষাৎ ।