থাইল্যান্ডের প্রশাসনিকর সাবেক কর্মকর্তাকে ৪৩ বছরে কারাবাসের রায় শুনতে হয়েছে। পডকাস্টে থাই রাজ পরিবারের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলেছিলেন বলে তাকে অভিযুক্ত করা হয়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে জানা যায়, দেশটির ৬৩বছর বয়সী নারী আনচন কে এই শাস্তি দেয়া হয়।  তিনি দীর্ঘ সময় দেশটির প্রসাশনিক দায়িত্বে ছিলেন। তবে ২০১৪ থেকে ২০১৫ সালে দিকে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু পডকাস্ট আপলোড করেন। সেখানে তিনি রাজপরিবারের আর্থিক বিষয়ে কিছু  প্রশ্ন তোলেন। আর তার জেরেই তাকে এই শাস্তি ভোগ করতে হবে।

দেশটির রাজপরিবারের আইন খুবই শক্তিশালী। যদি কেউ রাজপরিবারের বিরুদ্ধে কথা বলেন, সেটা খুবই অন্যায়। কেউ প্রশ্ন তুললে কঠিনতম শাস্তির বিধান রয়েছে। প্রথম দিকে এই কর্মকর্তাকে ৪৭বছরের শাস্তি শোনানো হয়েছিল। পরে আদালতে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ স্বীকার করায় শাস্তি কমিয়ে ৪৩ বছর করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত একবছর ধরে দেশটিরর রাজ পরিবারের ক্ষমতার বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন চলছে। তাদের অভিযোগ ২০১৪সালে গঠিত সেনা জুন্টা সরকার গণতন্ত্র রক্ষায় ব্যর্থ। আর তার জেড় ধরেই ছাত্রছাত্রীদের নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন শুরু করেছে।

তাদের দাবি , থাই  রাজ পরিবারের ক্ষমতা কমাতে হবে। সবার জন্য আইন সমান করা , কারণ থাই রাজপরিবারের বিরুদ্ধে কথা বললে যে আইন প্রয়োগ হয় তা রহিত করা। এছাড়াও থাই সেনাদের যে ক্ষমতা রাজার হাতে তাও বাতিল করতে হবে।

আন্দোলন দমন করতে দেশটির সরকার পুলিশ বাহিনী দিয়ে বাঁধা প্রধান করছেন। আর এই ঘটনার মধ্যই আনচনের শাস্তির ঘটনা রীতি মতো প্রভাব ফেলে দেয় আন্দোলনে। বিশেষজ্ঞদের বলছেন, আনচনের শাস্তিকে কেন্দ্র করে নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে উঠবে ব্যাংকক।

 

দেশ-ইনসাইডার/এ.আর